সেরা ভিডিও বানানোর অ্যাপস কোনটি? 5 টি সেরা ভিডিও অ্যাপস

সেরা ভিডিও বানানোর অ্যাপস: বাজারে এখন TikTok, MX Takatak, Moj এর মত শর্ট ভিডিও এর চাহিদা প্রচুর বেড়ে গেছে। এখন তো ফেসবুক ইউটিউব এবং ইনস্টাগ্রাম শর্ট ভিডিওর জন্য আলাদাভাবে সেকশন তৈরি করেছে। টিকটক ভারত থেকে চলে যাওয়ার পর নতুন নতুন অনেক শর্ট ভিডিও অ্যাপস এসেছে।

প্লে স্টোরে যদি আপনি দেখেন তো প্রচুর শর্ট ভিডিও অ্যাপস পাবেন। মোটকথা এখন শর্ট ভিডিও এর জেনারেশন। আর মানুষ এই শর্ট ভিডিও দেখাটাও অনেকটাই পছন্দ করছে। তাই এই শর্ট ভিডিও এর ডিমান্ড এতটাই বেড়ে গেছে। আর এই শর্ট ভিডিও বানানোর জন্য দরকার একটি সেরা ভিডিও বানানোর অ্যাপস

শুধুমাত্র শর্ট ভিডিওর জন্যই নয় আরো নানান ভিডিও এডিটিং এর জন্য দরকার একটি ভালো ভিডিও অ্যাপ। ভিডিও এডিটিং এর সাথে সাথে যদি ফটো দিয়ে ভিডিও বানানো ও হয়ে যায় তাহলে কেমন হয়? অনেক ক্ষেত্রেই অনেকগুলো ফটো নিয়ে একটা ভিডিও বানানো ও দরকার থাকে। মোটকথা একটি অ্যাপের মাধ্যমে আপনি সবকিছুই পাবেন।

প্লে স্টোরে সাধারণত সার্চ করলে প্রচুর পরিমাণে ভিডিও বানানোর অ্যাপস পেয়ে যাবেন। এরমধ্যে কিছু কিছু ফ্রী আবার কিছু কিছু টাকা দিয়ে কিনতে হবে।

আমার আজকের এই আর্টিকেলটিতে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করব পাঁচটি সেরা ভিডিও বানানোর অ্যাপস। যা দিয়ে আপনি খুব সহজেই আপনার জন্য একটি পারফেক্ট ভিডিও বানাতে পারেন এবং তাও আবার ফ্রিতে। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক কোন সেই 5 টি ভিডিও অ্যাপস

5 টি সেরা ভিডিও বানানোর অ্যাপস

5 টি সেরা ভিডিও বানানোর অ্যাপস

আপনি যদি শর্ট ভিডিও বানানোর জন্য অথবা ফটো দিয়ে ভিডিও বানানোর জন্য একটি সেরা ভিডিও বানানোর অ্যাপস খুঁজছেন তাহলে আর্টিকেলটি অবশ্যই পুরোটা পড়ুন আপনি অবশ্যই একটি সেরা ভিডিও অ্যাপ খুঁজে পাবেন।

অনেক শর্ট ভিডিও রয়েছে যেখানে ভিডিওগুলোর এডিটিং দেখলে মনে হয় যেন খুবই ভাল একটি কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ দিয়ে এডিট করা। মানে অনেকটা প্রো লেভেলের ভিডিও এডিট। নিচে যে অ্যাপ্লিকেশনগুলির কথা আমি বলব এই অ্যাপ্লিকেশনগুলি দিয়ে আপনি আপনার ফোন থেকে অনেকটা প্রো লেভেলের ভিডিও এডিট করতে পারবেন খুব সহজেই।

আরও পড়ুন:  সেরা ভারতীয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ কোনগুলি? 5 টি সেরা ভারতীয় অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ

কেননা প্রতিটি অ্যাপ্লিকেশন আমি নিজে ব্যবহার করেছি তার পরেই আপনি আপনাদের সাথে শেয়ার করছি। আমি নিজে ব্যবহার করে বুঝেছি অ্যাপ্লিকেশনগুলি ব্যবহার করা কতটা সোজা। কতটা সহজ পদ্ধতিতে আপনি অ্যাপ্লিকেশনগুলি থেকে ভিডিও এডিট করতে পারবেন এবং আপনার ফটো দিয়েও ভিডিও বানাতে পারবেন।

তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক কোন সেই 5 টি ভিডিও অ্যাপস। পাঁচটি সেরা ভিডিও বানানোর অ্যাপস হলো-

  • Kinemaster
  • PowerDirector
  • FilmoraGo
  • AndroVid
  • VIta

Kinemaster ভিডিও বানানোর সেরা অ্যাপস

আপনি যদি একটি প্রো লেভেলের ভিডিও বানাতে চান তাহলে, Kinemaster আপনাকে প্রচুর সাহায্য করবে। Kinemaster দারুন একটি ভিডিও বানানোর অ্যাপস। প্লে স্টোরে যদি আপনি এই অ্যাপটি দেখেন তাহলে আপনি দেখবেন সেখানে এই অ্যাপটির 4.4 রেটিং রয়েছে এবং 4 মিলিয়নেরও বেশি মানুষ এটিতে রেটিং দিয়েছেন।

এবং Kinemaster অ্যাপ্লিকেশনটি 100 মিলিয়ন এরও বেশি ডাউনলোড হয়েছে। তাহলে বুঝতেই পারছেন কতটা ভালো এবং পপুলার একটি ভিডিও এডিটিং অ্যাপ্লিকেশন। এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনি শুধু ভিডিও নয় আপনি চাইলে ফটো দিয়েও ভিডিও বানাতে পারেন। আর এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করাও খুব সহজ। খুব সহজেই আপনি এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে ভিডিও এডিট করতে পারবেন। নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করে আপনি সরাসরি প্লে স্টোর থেকে Kinemaster অ্যাপটি ইনস্টল করে নিতে পারেন।

প্লে স্টোর লিংক

PowerDirector সেরা ভিডিও অ্যাপ

কাইনমাস্টার এর পর PowerDirector আরও একটি সেরা ভিডিও অ্যাপ। এই অ্যাপটি ও প্রচুর পপুলার একটি ভিডিও বানানোর অ্যাপসPowerDirector অ্যাপ্লিকেশনে প্রচুর ফিচারস রয়েছে। আপনি যদি প্লে স্টোরে সার্চ করেন তাহলে দেখতে পাবেন এই অ্যাপ্লিকেশনটি 4.5 রেটিং রয়েছে এবং 1 মিলিয়ন এর ও বেশি মানুষ এটিতে রেটিং দিয়েছেন।

এবং 100 মিলিয়নের বেশি এই অ্যাপটি ডাউনলোড করা হয়েছে। কাইনমাস্টার এর মত এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করা খুবই সোজা। এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই ভিডিও এডিট করতে পারবেন এবং ফটো দিয়ে ভিডিও বানাতে পারবেন। নিচের দেওয়া লিংকে ক্লিক করে সরাসরি প্লে স্টোর থেকে এই অ্যাপ্লিকেশনটি ইনস্টল করতে পারেন।

আরও পড়ুন:  অ্যান্ড্রয়েড ফোনের সেরা অ্যান্টিভাইরাস কোনগুলি? সেরা 5 টি অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ

প্লে স্টোর লিংক

FilmoraGo সেরা ভিডিও বানানোর অ্যাপস

FilmoraGo অ্যাপ্লিকেশনটি যথেষ্ট পপুলার একটি অ্যাপ্লিকেশন। অ্যাপ্লিকেশনটির একটি কম্পিউটার এবং ল্যাপটপের জন্য ভিডিও এডিটিং এর সফটওয়্যার রয়েছে। এটি খুবই জনপ্রিয় একটি সফটওয়্যার। FilmoraGo অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে ভিডিও এডিট করা যথেষ্ট সোজা। যে কেউ এটি কোন ইনস্ট্রাকশন ছাড়াই ব্যবহার করতে পারবে।

প্লে স্টোরে FilmoraGo অ্যাপ্লিকেশনের 4.6 রেটিং রয়েছে। এবং 1.5 লক্ষেরও বেশি মানুষ এই অ্যাপ্লিকেশনটির জন্য রেটিং দিয়েছেন। এবং এই অ্যাপ্লিকেশনটি 50 মিলিয়নের বেশি ডাউনলোড হয়েছে। এই অ্যাপ্লিকেশনটি খুবই জনপ্রিয় একটি অ্যাপ্লিকেশন তবে এটির যে কম্পিউটার অথবা ল্যাপটপ এর সফটওয়্যারটি রয়েছে সেটি আরও বেশি পপুলার। নিচের দেওয়া লিংকে ক্লিক করে সরাসরি প্লে স্টোর থেকে আপনি FilmoraGo ভিডিও অ্যাপস ইনস্টল করতে পারেন আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে।

প্লে স্টোর লিংক

AndroVid সেরা ভিডিও অ্যাপস

AndroVid খুবই পুরানো একটি ভিডিও বানানোর অ্যাপস। 2011 সালে এই অ্যাপ্লিকেশনটি রিলিজ করা হয়েছিল। এই অ্যাপ্লিকেশনটি ও বাকি অ্যাপ্লিকেশন দের মত জনপ্রিয় একটি ভিডিও অ্যাপস। খুব সহজে আপনি এই অ্যাপ্লিকেশনটির মাধ্যমে আপনার পছন্দমত ভিডিও এডিট করতে পারেন। এবং আপনার ফটো দিয়ে একটি ভিডিও বানাতে পারেন।

প্লে স্টোরে AndroVid অ্যাপ্লিকেশনটির 4.3 রেটিং রয়েছে। 3 লক্ষেরও বেশি মানুষ এই অ্যাপ্লিকেশনটিতে রেটিং দিয়েছেন। এবং অ্যাপ্লিকেশনটি 50 মিলিয়নের ও বেশিবার ডাউনলোড হয়েছে। তাহলে আপনি অবশ্যই বুঝতে পারছেন এই অ্যাপ্লিকেশনটি ও কতটা পপুলার একটি অ্যান্ড্রয়েড ভিডিও এডিটিং অ্যাপ্লিকেশন। AndroVid অ্যাপ্লিকেশনটি যদি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ইনস্টল করতে চান তাহলে নিচের দেওয়া লিংকে ক্লিক করে প্লে স্টোর থেকে অ্যাপ্লিকেশনটি আপনার ফোনের জন্য ইনস্টল করে নিতে পারেন।

প্লে স্টোর লিংক

Vita ভিডিও বানানোর অ্যাপ

Vita ভিডিও অ্যাপস টি 2019 সালে রিলিজ করা হয়েছিল। প্লে স্টোরে যদি আপনি ভিডিও এডিটিং অ্যাপস দিয়ে সার্চ করেন তাহলে আপনি এই অ্যাপসটির পুরো ডিটেলস পেয়ে যাবেন। বাকি চারটি অ্যাপ্লিকেশন এর মত এই অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করা খুবই সহজ। Vita অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই আপনার পছন্দের ভিডিও এডিট করতে পারেন অথবা নতুন ভিডিও বানাতে পারেন। এবং আপনি যদি চান আপনার ফটো দিয়ে ভিডিও বানাতে সেটিও করতে পারেন।

আরও পড়ুন:  ফ্রিতে Thumbnail তৈরীর জন্য সেরা অ্যাপ কোনটি?

প্লে স্টোরে Vita অ্যাপ্লিকেশনের 4.3 রেটিং রয়েছে। এবং এই অ্যাপ্লিকেশনটি 3.5 লক্ষেরও বেশি রেটিং রয়েছে প্লে স্টোর এ। অ্যাপ্লিকেশনটি 50 মিলিয়নেরও বেশি বার ইনস্টল করা হয়েছে। অ্যাপ্লিকেশনটির সাইজ একটু বেশি হলেও যথেষ্ট ভালো এবং পপুলার একটি ভিডিও অ্যাপস। নিচে দেওয়া প্লে স্টোরের লিঙ্ক থেকে আপনি সরাসরি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জন্য Vita অ্যাপ্লিকেশনটি ইনস্টল করে নিতে পারেন।

প্লে স্টোর লিংক

জরুরি তথ্য

উপরে যে 5 টি ভিডিও বানানোর অ্যাপস এর কথা বললাম এর প্রতিটি আমি ব্যবহার করে আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম। এই পাঁচটি অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে আমি সাধারণত Kinemaster অ্যাপ্লিকেশনটি একটু বেশি ব্যবহার করে থাকি। এটিতে প্রচুর ফিচারস রয়েছে এবং ব্যবহার করাও যথেষ্ট সোজা। তবে বাকি চারটি অ্যাপ্লিকেশন ও যথেষ্ট ভালো।

প্রায় প্রতিটি অ্যাপ্লিকেশন এ ভিডিও এডিট করার পদ্ধতি একই। যদি উপরে দেওয়া কোনো অ্যাপ্লিকেশন এর ব্যবহার পদ্ধতি জানতে চান বা যদি জানতে চান ভিডিও এডিট করার পদ্ধতি তাহলে নিচে কমেন্ট করে জানান। অবশ্যই আমি সেই অ্যাপ্লিকেশন এর উপর একটি আর্টিকেল লেখার চেষ্টা করব।

আর্টিকেলটি পুরোটা পড়ার পর আশা করছি আপনি আপনার পছন্দের ভিডিও অ্যাপস বেছে নিতে পেরেছেন। নিচে কমেন্ট করে অবশ্যই বলবেন কোন অ্যাপ্লিকেশনটি থেকে ভিডিও এডিটিং পদ্ধতি আপনি জানতে চান। অবশ্যই আর্টিকেলটি শেয়ার করবেন, আপনার ফ্রেন্ড দের সাথে যারা ভিডিও এডিটিং করতে পছন্দ করেন। আর AnswerChamp সাইটটি ফলো করবেন এই রকম ছোট ছোট টিপস এন্ড ট্রিকস জানার জন্য। ধন্যবাদ।।

Leave a Comment